1. Study PDF

অষ্টম শ্রেণি ইতিহাস মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক ২০২২ ফেব্রুয়ারী উত্তর PDF

অষ্টম শ্রেণি ইতিহাস মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক ২০২২ ফেব্রুয়ারী উত্তর PDF:

1) ক) 1717
খ) মির কামার উদ্দিন খান সিদ্দিকী
গ)1770
ঘ) লর্ড ওয়েলেসলি

2) ক স্তম্ভ খ স্তম্ভ

1757 খ্রিস্টাব্দ----- পলাশীর যুদ্ধ
1764 খ্রিস্টাব্দ----- বক্সার যুদ্ধ
1765 খ্রিস্টাব্দ----- দেওয়ানী অধিকার
1782 খ্রিস্টাব্দ

3) ক) বাংলার রাজধানী হিসেবে মুঙ্গের কে বেছে নিয়েছিল মীর কাসিম।

 খ) স্বত্ববিলোপ নীতি প্রয়োগ করে কোম্পানি সাঁতরা, ঝাসি, সম্বলপুর ইত্যাদি রাজ্যগুলি দখল করে নিয়েছিল।

 গ) কম্পানি ও মহীশুরের মধ্যে 1767 থেকে 1799 খ্রিস্টাব্দে এর মধ্যে চারটি যুদ্ধ হয়েছিল।

4) ক) 1717 খ্রিস্টাব্দে দিল্লির বাদশাহ ফারুকশিয়ার কর্তৃক কোম্পানিকে ফরমান প্রদানের ঘটনা ছিল ভারত তথা বাংলার আর্থ রাজনৈতিক ইতিহাসে এক গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা। এতে বলা হয়েছে —

i) বাৎসরিক 3000 টাকার বিনিময় কোম্পানি বাংলা, বিহার, উড়িষ্যা বা সুবা বাংলায় বিনাশুল্কে বাণিজ্য করতে পারবে।
ii) দস্তক প্রাপ্ত জাহাজে তল্লাশি করা যাবে না।
iii) কলকাতার পার্শ্ববর্তী 38 টি গ্রাম কোম্পানি ক্রয় করতে পারবে।
iv) মাদ্রাজি টাকা বাটা ছাড়া বাংলায় ব্যবহার করতে পারবে।
v) মুর্শিদাবাদের টাঁকশাল কোম্পানি ব্যবহার করতে পারবে।
vi) এছাড়া সুরাট, হায়দ্রাবাদ সহ বিভিন্ন অঞ্চলে কোম্পানি বিভিন্ন বাণিজ্যিক সুবিধা লাভ করবে।

খ) পলাশীর যুদ্ধের পর বাংলার নবাব কে বিভিন্ন খাতে ইংরেজ কোম্পানি ও ইংরেজ কর্মচারীদের প্রচুর অর্থ দিতে বাধ্য করা হয়। উদাহরণস্বরূপ সিরাজউদ্দৌলার কলকাতা আক্রমণের অজুহাতে কম্পানি ক্ষতিপূরণ স্বরূপ এক কোটি 77 লাখ টাকা আদায় করে। এইভাবে বৈধ অবৈধ নানাভাবে কোম্পানি বাংলা থেকে বিপুল সম্পদ লুঠ করে নেয়, যা পলাশীর লুণ্ঠন নামে পরিচিত। সব মিলিয়ে পলাশীর যুদ্ধের পর তিন কোটি টাকার সম্পদ মীরজাফরকে দিতে বাধ্য করেছিল কোম্পানি। এর ফলে বাংলার অর্থনৈতিক কাঠামো বিধ্বস্ত হয়ে পড়ে, বাংলার ব্যবসা-বাণিজ্যে ইংরেজ কোম্পানির একচেটিয়া কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠিত হয়।

গ) ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির দেওয়ানি লাভ ভারতের আর্থিক ও রাজনৈতিক ইতিহাসে এক অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা। দেওয়ানি লাভ এর ফলে-

i) বাংলা তথা ভারতের প্রশাসনিক ক্ষেত্রে কোম্পানির আইনি বৈধতা সুপ্রতিষ্ঠিত হয়।
ii) ইংরেজ নির্ভর নবাবের ক্ষমতা হ্রাস পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তিনি নামে নবাব এ পরিণত হন।
iii) বাংলায় দ্বৈত শাসন ব্যবস্থার সূচনা হয়।
iv) কোম্পানির একচেটিয়া বাণিজ্য নিয়ন্ত্রণ এর ফলে বাংলার বাণিজ্য ও অর্থনীতি বিদেশী বণিকদের হাতে চলে যায়। সর্বোপরি অর্থনৈতিক ক্ষমতার অধিকারী হয়ে ইংরেজ কোম্পানি ভারতের রাজনৈতিক ক্ষেত্রে নিজের কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠাতে উদ্যত হয়।

এছাড়া দেখে নাওঃ

অংশীদারি কারবার(Partnership Business) সূত্রাবলী

চক্রবৃদ্ধি সুদ(Compound Interest Formula Bengali)